Powered by Ajaxy
Sep 21, 2020
65 Views
Comments Off on বাংলাদেশের বাজারে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন

বাংলাদেশের বাজারে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন

Written by

বাংলাদেশের বাজারে রিয়েলমি নিয়ে এসেছে তাদের সি সিরিজের আরেকটি মোবাইল সেট। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, সি সেভেন্টিন নামের তাদের এই সেটে থাকছে স্টাইলিস্ট ডিজাইন ও সর্বাধুনিক ফিচার। এতে থাকছে ৯০ হার্টজের আলট্রা-স্মুথ ডিসপ্লে, ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ।  ফ্ল্যাগশিপ সব ফিচার সংযুক্ত এই সেটের দাম পড়বে ১৫ হাজার ৯৯০ টাকা। সি সিরিজের গ্রাহকসংখ্যা ১ কোটি ৩২ লাখ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে রিয়েলমি কর্তৃপক্ষ।

৯০ হার্টজ আলট্রা স্মুথ ডিসপ্লে

রিয়েলমি সি সেভেন্টিন-এ ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেটের কারণে গেমিং, সোশ্যাল মিডিয়া স্ক্রলিং, ভিডিও, মুভি দেখা অনেক স্মুথ অ্যান্ড রিফ্রেশিং হবে। সি সেভেন্টিন প্রচলিত ৬০ হার্টজের ডিসপ্লের তুলনায় ৫০ শতাংশ বেশি রিফ্রেশ রেট প্রদান করে প্রতিটি সোয়াইপে দেবে চমৎকার স্মুথনেস। ডিসপ্লের উজ্জ্বলতা ৬০০ নিট পর্যন্ত হওয়ায় বাইরের প্রচণ্ড আলোতেও সহজেই ফোন ব্যবহার করা যাবে।

রিয়েলমি সি সেভেন্টিন-এ ৬.৫ইঞ্চি ডিসপ্লের স্ক্রিন-টু-বডি অনুপাত ৯০ শতাংশ। রিয়েলমি সি সিরিজের স্মার্টফোনে এই প্রথম ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ডিসপ্লের সংযোজন হলো, যা স্ক্রিন কালার টেম্পারেচার ফাংশন থাকায় ব্যবহারকারীরা নিজদের পছন্দমতো স্ক্রিনের কালার টেম্পারেচার বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এর ফলে স্ক্রিনের ব্লু লাইটের পরিমাণ কমে এসে চোখের ওপর চাপ কমাবে

৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ

৬ জিবি র‍্যাম স্মার্টফোনটির পারফেক্ট ইউজার এক্সপেরিয়েন্স নিশ্চিত করবে। পাশাপাশি, ১২৮ গিগাবাইট ইউএফএস ২.১ ইন্টারনাল স্টোরেজের সমন্বয়ে ব্যবহারকারীদের একটি স্মুথ স্মার্টফোন এক্সপেরিয়েন্স দেবে। রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে ব্যবহার করা হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৪৬০ প্রসেসর। ১১ ন্যানোটারের শক্তিশালী এ প্রসেসরের সঙ্গে ক্রায়ো ২৪০ সিপিইউ এবং অ্যাড্রেনো ৬১০ জিপিইউ এর সঙ্গে সর্বোচ্চ ১.৮ গিগাহার্টজ পর্যন্ত গতিতে কাজ করতে পারে।

৩৪ দিনের স্ট্যান্ডবাই সাপোর্টসহ ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি
রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে আছে ৫,০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি, যা স্ট্যান্ডবাই মোডে ৩৪ দিন পর্যন্ত চলবে। এতে আছে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ, যা মাত্র ৩০ মিনিটে ব্যাটারির ৩৩ শতাংশ চার্জ করতে পারে। অল্প ব্যবহৃত অ্যাপ্লিকেশনগুলো যেন ব্যাকগ্রাউন্ডে থেকে পাওয়ার কনজাম্পশন না করে, সেদিকে লক্ষ্য রাখবে অ্যাপ কুইক ফ্রিজ ফিচার। এ ছাড়াও স্ক্রিন ব্যাটারি অপটিমাইজেশন স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডিসপ্লে ইফেক্ট কমিয়ে ব্যাটারির ওপর চাপ কমাবে। সুপার পাওয়ার সেভিং মোডে মাত্র ৫% শতাংশ ব্যাটারি ব্যবহারে প্রায় ১.২ ঘণ্টা হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা যাবে, সাড়ে চার ঘণ্টারও বেশি অনলাইনে গান শোনা যাবে।

সুপার নাইটস্কেপ মোড সঙ্গে এআই ক্যামেরা

রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে আছে আলট্রা-ক্লিয়ার কোয়াড ক্যামেরা সেট-আপ। ১৩ মেগাপিক্সেলের মূল ক্যামেরা, ৮ মেগাপিক্সেলের ১১৯ ডিগ্রির ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা, একটি ম্যাক্রো লেন্স এবং একটি সাদা-কালো পোর্ট্রেট লেন্সের সমন্বয়ে এই সেট-আপে প্রতি মুহূর্তের চমৎকার ছবি তোলা যাবে। ১৩ মেগাপিক্সেলের সঙ্গে এফ/২.২ এর বড় অ্যাপারচার অল্প আলোতেও পরিষ্কার, উজ্জ্বল ছবির তুলতে সাহায্য করবে। ৪এক্স জুম ব্যবহারে দূরেরও পরিষ্কার ছবি তোলা যাবে।

৮ মেগাপিক্সেলের ১১৯ ডিগ্রি ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্সে প্রাকৃতিক দৃশ্য, স্থাপত্য, এবং গ্রুপ ছবি তোলায় মিলবে স্বাচ্ছন্দ্য। আলট্রা-ম্যাক্রো লেন্সে ক্ষুদ্র বিষয়বস্তুর মাত্র ৪ সেন্টিমিটারের কাছে গিয়ে ম্যাক্রো জগতের সৌন্দর্য ধারণ করা যাবে। পোর্ট্রেট লেন্সের উন্নততর নতুন কালার ফিল্টারে আরও বেশি লাইট ধারণ করে পোর্ট্রেটে দেবে চমৎকার ডিটেইলস আর অসাধারণ টেক্সচার।

৮ মেগাপিক্সেলের আলট্রা-ক্লিয়ার ইন ডিসপ্লে ফ্রন্ট ক্যামেরায় বড় অ্যাপারচার, এআই বিউটিফিকেশন, বোকেহ ইফেক্টে চকচকে সেলফি চাহিদা উপহার দেবে। সেলফি ক্যামেরায় এইচডিআর এবং ইআইএস স্টেবিলাইজেশনও আছে।

রাতে সুন্দর কোনো দৃশ্যের উজ্জ্বল ছবি তুলতে সাহায্য করবে সি সেভেন্টিনের সুপার নাইটস্কেপ মোড। এ ছাড়াও ক্যামেরায় আছে ৩০ ফ্রেমে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ডিং, টাইম-ল্যাপ্স এবং প্যানোরামা মোড।

ট্রেন্ডি লাইফস্টাইলের জন্য চোখ ধাঁধানো ডিজাইন

ফোন ব্যবহারে আরও প্রিমিয়াম অনুভূতির জন্য রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে স্মুথ ফিনিশিং নিশ্চিত করা হয়েছে। ১৮৮ গ্রামের ফোনটির পুরুত্ত্ব ৮.৫ মিলিমিটার। ফোনের পেছনের অংশে ক্যামেরার পাশে থেকে শুরু হয়ে একটি চমৎকার আলোর বিচ্ছুরণ হয়, যা ব্যাক কভারে এক দৃষ্টিনন্দন ডিজাইন প্রদান করে।

লেক গ্রিন ও নেভি ব্লু — এ দুটি নান্দনিক রঙে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন। পরিষ্কার হ্রদের প্রশান্তি ও গভীর সমুদ্রের রহস্যময় অনুভূতির মিশেলে ফোন দুটি ডিজাইন করা হয়েছে

Comments are closed.