Tuesday , June 28 2022
Home / Mobile / স্মার্টফোন ভাইরাস ঢুকে বসে আছে? খুঁজে ডিলিট করবেন কীভাবে

স্মার্টফোন ভাইরাস ঢুকে বসে আছে? খুঁজে ডিলিট করবেন কীভাবে

যে কোনো স্মার্টফোনের সবচাইতে বিপজ্জনক শত্রু হল ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস। কোনো স্মার্টফোনে ম্যালওয়্যার প্রবেশ করলে নিমেষের মধ্যে গায়েব হয়ে যেতে পারে মোবাইলের সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ইউজার বুঝতে পারেন না যে তার মোবাইলে ভাইরাস অ্যাটাক করেছে। টের পাওয়া যায় এক্কেবারে শেষমুহূর্তে। আইফোন ও অ্যান্ড্রয়েড দুটি ডিভাইসেই ভাইরাস যেকোনো মুহূর্তে আক্রমণ করতে পারে। তাই সবসময়েই মোবাইল ব্যবহারের ক্ষেত্রে সচেতন হওয়া প্রয়োজন। সেইসঙ্গে কোনো ম্যালওয়্যার থাকার সম্ভাবনা চোখে পড়লেই, তা ডিলিট করে দিতে হবে খুব তাড়াতাড়ি।

ট্রোজান, স্পাইওয়্যার, অ্যাডওয়্যার, র‍্যানসামওয়্যার, এরা হল বিভিন্ন ধরণের ম্যালওয়্যারের উদাহরণ। আসলে ম্যালওয়্যার হল এমন একধরনের বিপজ্জনক সফটওয়্যার সিস্টেম যা কম্পিউটার সিস্টেমকে নষ্ট করে দিতে পারে। নিমেষের মধ্যে হাতিয়ে নিতে পারে সমস্ত ডেটা।

কীভাবে বোঝা যাবে যে মোবাইলে ভাইরাস প্রবেশ করেছে কিনা?

মোবাইল ডেটা তাড়াতাড়ি শেষ হলে

মোবাইলের ডেটা বা ইন্টারনেট যদি খুব তাড়াতাড়ি শেষ হয়ে যায় তাহলে বুঝতে হবে যে ফোনে ম্যালওয়্যার ঢুকে পড়েছে। ডেটা শেষ হবার পাশাপাশি মোবাইল ব্যাটারিও দ্রুত শেষ হতে শুরু করলে মোবাইলে যে ভাইরাস রয়েছে তা সম্পর্কে একশো শতাংশ নিশ্চিত হওয়া সম্ভব।

ফোন গরম হয়ে গেলে

আপনি মোবাইল ইউজ করছেন না ,অথচ দেখছেন যে নিজে থেকেই গরম হয়ে যাচ্ছে। এমন কোনো ঘটনার সম্মুখীন হলে বুঝতে হবে যে, আপনার মোবাইলের দখল নিয়েছে ভাইরাস।

স্ক্রিনে বারবার অ্যাড শো করলে

আপনার মোবাইলের স্ক্রিনে যদি বারবার অ্যাড শো করে, তবে বুঝতে হবে যে আপনার ফোনে অ্যাড ম্যালওয়্যার প্রবেশ করেছে। অ্যাড ম্যালওয়্যার ইউজারের মোবাইল থেকে খুব সহজেই হাতিয়ে নিতে পারে গুরুত্বপূর্ণ ইনফরমেশন।

সেভ কনট্যাক্টে স্পাম মেসেজ গেলে

আপনার মোবাইলে সেভ থাকা কনট্যাক্টে আপনার নাম্বার থেকেই মেসেজ যাচ্ছে, অথচ আপনি এই ব্যাপারে কিছু জানেন না। এমন কিছু ঘটলে বুঝতে হবে যে আপনার মোবাইল ভাইরাস আক্রমণের শিকার হয়েছে। যে সমস্ত ফোনে মেসেজ গেছে সেগুলিতেও অ্যাটাকের সম্ভাবনা রয়েছে।

ফোন থেকে কীভাবে ভাইরাস থাকতে পারে এমন অ্যাপ ডিলিট করবেন

  • মাঝে মাঝে এমন হয় যে আমরা কোনো অ্যাপ ফোনে ইনস্টল করিনি, কিন্তু ডিসপ্লেতে সেই অ্যাপ দেখা যাচ্ছে। এমন ঘটনা ঘটলে বুঝতে হবে যে এই ধরণের অ্যাপে ম্যালওয়্যার থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।
  • মোবাইলে থাকা কোনো অচেনা অ্যাপ যদি বেশি ডেটা খরচ করে, তবে বুঝতে হবে যে এই ধরণের অ্যাপে ভাইরাস থাকতে পারে।
  • ফোনের প্রতিটি অ্যাপকে ভালো করে চেক করতে হবে, যেগুলিতে খারাপ রিভিউ রয়েছে সেগুলিকে আন- ইনস্টল করে দিতে হবে।

ভাইরাসের হাত থেকে কীভাবে সুরক্ষিত থাকবেন- 

APK ইনস্টল করবেন না

অ্যাপ ডাউনলোড করতে হলে সবসময়ে প্লে- স্টোর বা অ্যাপ-স্টোর থেকে ডাউনলোড করুন। অচেনা ওয়েবসাইট থেকে APK ভার্সন ইনস্টল করা থেকে দূরে থাকুন। প্লে-স্টোর বা অ্যাপ-স্টোর থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করার সময় রেটিংস দেখে নেবেন।

পারমিশন অ্যাক্সেস ভেবে চিনতে দেবেন

প্রত্যেকটি অ্যাপ ইনস্টল হবার পর ইউজারের থেকে বেশ কিছু পারমিশন অ্যাক্সেস চায়। কোনো অ্যাপ কোনো ব্যাক্তিগত ইনফরমেশনের পারমিশন অ্যাক্সেস চাইলে বুঝতে হবে যে তাতে গন্ডগোল রয়েছে।

অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ইনস্টল করুন

আজকাল মোবাইলের সিস্টেমেই অ্যান্টিভাইরাস স্ক্যানিং করার সুযোগ থাকে। তাছাড়াও ভালো রেটিংয়ের অ্যান্টিভাইরাস স্ক্যানার ইনস্টল করতে পারেন।

Check Also

স্মার্টফোনের ব্যবহার, স্মার্টফোন সম্পর্কে লেখ, স্মার্টফোন কে আবিষ্কার করেন, স্মার্টফোন কি, স্মার্টফোন ব্যবহারের সুবিধা অসুবিধা, স্মার্টফোন আসক্তি পড়াশোনার ক্ষতি,

পুরোনো স্মার্টফোন যেসব কাজে লাগাতে পারেন

বাজারে নতুন কোনো ফোন এলেই সেটি কেনার জন্য মন উসখুস করতে থাকে অনেকের। যারা সারাক্ষণ …