Saturday , November 26 2022
Home / Android apps/tips / ৬ অ্যাপে গান শোনা যাবে বিজ্ঞাপন ছাড়া

৬ অ্যাপে গান শোনা যাবে বিজ্ঞাপন ছাড়া

৬ অ্যাপে গান শোনা যাবে বিজ্ঞাপন ছাড়া

সঙ্গীতপ্রিয় প্রায় সবার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আগে থেকেই মিউজিক প্লেয়ার ইনস্টল করা থাকে। তবে থার্ড পার্টির এসব অ্যাপগুলোতে অনেক ফিচারই দেখা যায় না। এ ক্ষেত্রে প্লে-স্টোরের অ্যাপগুলোই যখন শেষ ভরসা তখন বিজ্ঞাপনের জন্য নির্বিঘ্নে গান শোনা আর হয়ে ওঠে না।

তাই বিজ্ঞাপনমুক্ত ও বিনামূল্যের ৭টি মিউজিক প্লেয়ার অ্যাপের তালিকা নিয়ে থাকছে আজকের আয়োজন।

মিউজিকোলেট

ইন্টারনেট ব্যবহার ছাড়াই গান উপভোগ করা যায় এমন অ্যাপের মধ্যে মিউজিকোলেট অন্যতম। আকর্ষণীয় ইউআই ডিজাইনের এই মিউজিক প্লেয়ারের মাধ্যমে ফোনে ডাউনলোড এবং সেইভ রাখা গান শোনা যায়। ট্যাগ বা নাম দ্বারা একাধিক মিউজিক ফাইল নির্বাচন করে কাস্টমাইজড কালেকশনে সংরক্ষণ করার সুবিধা পাওয়া যায় মিউজিকোলেটে।

এ ছাড়া একাধিক মিউজিক ফাইলের ট্যাগ সম্পাদনা করার পাশাপাশি গান শোনার সেরা অভিজ্ঞতার জন্য মিউজিকোলেটে রয়েছে ‘ব্যাস বুস্ট’ ও ‘সারাউন্ড সাউন্ড’ অপশনের মতো শক্তিশালী ইকুয়ালাইজার।

৬ অ্যাপে গান শোনা যাবে বিজ্ঞাপন ছাড়া ।বিজ্ঞাপনমুক্ত এই অ্যাপটিতে বেশিরভাগ ফিচারই বিনামূল্যে পাওয়া যায়। তবে মিউজিকোলেটের প্রিমিয়াম ভার্সনে গান ব্যাকআপ এবং সেটিংস ও প্লে-লিস্ট পুনরুদ্ধার করার মতো কিছু বাড়তি সুবিধাও পাওয়া যাবে।

শাটল

হালকা ডিজাইনের বিজ্ঞাপনমুক্ত আরেকটি মিউজিক প্লেয়ার অ্যাপ হলো শাটল। বিরতিহীন প্লেব্যাক, কাস্টমাইজড প্লেলিস্ট, ৬-ব্যান্ডের ইকুয়ালাইজারসহ আরও বেশকিছু ফিচারসমৃদ্ধ একটি অফলাইন মিউজিক প্লেয়ার এটি।

এই অ্যাপের মাধ্যমে প্লেলিস্ট আকারে গানের তালিকা সাজানো বা ডিভাইসে সাজানো ফোল্ডারগুলো থেকে সরাসরি গান শোনা যায়৷ এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে মিউজিক ফাইলে অনুপস্থিত আর্টওয়ার্ক ডাউনলোড করে। বিনামূল্যে শাটল ব্যবহার করার পাশাপাশি আইডিথ্রি ট্যাগ এডিটিং, ফোল্ডার ব্রাউজিং ইত্যাদি ফিচারের জন্য শাটল+ নামের প্রিমিয়াম সংস্করণ কেনা যেতে পারে।

পালসার

পালসার হলো বিজ্ঞাপনমুক্ত একটি ফিচার-প্যাকড মিউজিক অ্যাপ যা মিউজিক ফাইলের ট্যাগ এডিট করা, প্লে লিস্টে গান সাজানো এবং অ্যাপের মধ্যে ডিভাইস ফোল্ডার থেকে মিউজিক ব্রাউজ করার সুবিধা প্রদান করে। স্মার্ট প্লেলিস্ট ফিচারে সম্প্রতি যোগ করা, সর্বাধিক প্লে করা এবং সম্প্রতি শোনা গানের ওপর ভিত্তি করে তালিকা তৈরি করে পালসার। এটি ক্রোমকাস্ট এবং অ্যান্ড্রয়েড অটো সাপোর্ট করার পাশাপাশি সাউন্ড ব্যালেন্স, স্লিপ টাইমার এবং সর্বশেষ এফএম স্ক্রাবলিং করতে পারে। সবধরনের অডিও ফাইল ফরম্যাট সাপোর্ট করে পালসার। বর্তমানে ৩৬টি ভাষায় পাওয়া যায় এটি।

রেট্রো

ম্যাটেরিয়াল ডিজাইনের বিজ্ঞাপনমুক্ত সলিড ফিচার তালিকার মিউজিক প্লেয়ার হলো রেট্রো। পছন্দশীল অনন্য আউটলুকের জন্য এতে রয়েছে ১০টিরও বেশি থিম।

পালসারের মতো রেট্রোতেও রয়েছে স্বয়ংক্রিয় প্লেলিস্ট। যা সর্বাধিক শোনা এবং সম্প্রতি যোগ করা গানের ওপর ভিত্তি করে তৈরি করে থাকে৷ অ্যাপে কোন গান থাকবে তা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে ব্যবহারকারী নিজেই। মিউজিক প্লেয়ারে নির্দিষ্ট কোনো গান রাখতে না চাইলে সেটি ব্ল্যাকলিস্টে যোগ করা যায়, যা লাইব্রেরি থেকে ফাইল লুকিয়ে রাখতে সক্ষম হয়।

এ ছাড়া ৩০টি ভাষায় অনুদিত এই অ্যাপে ড্রাইভ মোড, ফোল্ডার সাপোর্ট, বিরতিহীন প্লেব্যাক, ট্যাগ এডিটর, ইউজার প্রোফাইলের মতো ফিচারের সুবিধা রয়েছে অ্যাপে। বিনামূল্যে ব্যবহার ছাড়াও এটির প্রিমিয়াম ভার্সন রেট্রো মিউজিক প্রো-তে কালো থিম, নাউ প্লেয়িং থিম, ক্যারোজেল ইফেক্টের মতো কিছু ফিচার পাওয়া যায়।

সিম্পল

সকলের জন্য উন্মুক্ত একটি মিউজিক প্লেয়ারের নাম সিম্পল। বিজ্ঞাপনমুক্ত এই অ্যাপে রয়েছে অনন্য ব্যাটারি-সেভার ফিচার। যা ডিভাইসের চার্জ কম ব্যয় করে গান শোনার অভিজ্ঞতাকে আরও মসৃণ করে তোলে। পছন্দের প্লে লিস্টে মিউজিক ফাইলগুলো পরিচালনা এবং সংগঠিত করার জন্য এতে রয়েছে একাধিক ফিচার। অ্যাপটির মাধ্যমে ডিভাইস ফোল্ডার থেকে প্লেলিস্ট তৈরি করা ছাড়াও স্লিপ টাইমার এবং ৫-ব্যান্ড ইকুয়ালাইজার পাওয়া যায়। এটি একটি নিরাপদ এবং সম্পূর্ণ অফলাইন মিউজিক প্লেয়ার।

ফোনোগ্রাফ

বিজ্ঞাপনমুক্ত মিউজিক প্লেয়ার তালিকায় আরেকটি চমৎকার সংযোজন হলো ফোনোগ্রাফ। যার মাধ্যমে কাস্টমাইজড প্লেলিস্ট তৈরি করার পাশাপাশি ট্যাগ এডিটিং, সর্বশেষ এফএম ইন্টিগ্রেশন সাপোর্ট এবং বিভিন্ন ইউআই-রঙের থিম পাওয়া যায়। সারিতে থাকা মিউজিক ফাইলগুলো পছন্দ অনুযায়ী সমন্বয় করা যায় অ্যাপে।

এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে মিউজিক ফাইলের বাড়তি তথ্যও ডাউনলোড করে থাকে। ফোনোগ্রাফের প্রিমিয়াম ভার্সনে স্লিপ টাইমার, ইকুয়ালাইজার, ফোল্ডার ভিউ এবং অন্যান্য থিমের রঙের মতো ফিচার থাকে।

ইয়োন

ছিমছাম ডিজাইনের মিউজিক প্লেয়ার হলো ইয়োন। বিজ্ঞাপনমুক্ত এই অ্যাপটির অনেকাংশই ব্যবহারকারীর পছন্দ অনুযায়ী সাজিয়ে নিতে পারে। এমনকি হোমপেজে কী থাকবে সেটির নিয়ন্ত্রণও থাকে ব্যবহারকারীর উপর।

অ্যাপটিতে থাকা বিল্ট-ইন ইকুয়ালাইজার মিউজিক ফাইলের অ্যালবাম আর্ট ডাউনলোড করে থাকে। গান শোনাকালীন ডিভাইসের স্লিপ মোডে যাওয়া থেকে বিরত রাখার পাশাপাশি ৪টি ভিন্ন থিমের অপশন রয়েছে এতে। অ্যাপটির প্রো ভার্সনে স্কিন, থিম, থিম মেকার, অ্যাডাপ্টিভ ওয়াইজেটস ইত্যাদি ফিচার পাওয়া যায়।

Check Also

হোয়াটসঅ্যাপের গোপন কিছু ট্রিকস, যা আপনি জানতেন না

এমন যদি হত, যে আপনি কারও স্ট্যাটাস দেখলেন, অথচ সেই ব্যক্তি জানতেই পারলেন না। আপনার …